ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৬ মার্চ ২০২৩
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হত্যা মামলার পলাতক আসামির দাওয়াতে দুবাইয়ে সাকিবসহ বেশ কয়েক তারকারা

অনলাইন ডেস্ক
মার্চ ১৬, ২০২৩ ৪:১৭ অপরাহ্ণ । ৬২ জন
ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারিয়ে হারিয়ে বাংলাওয়াশের স্বাদ দিল টাইগাররা। রাতেই দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন বাংলাদেশ অধিনায়ক ও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেখানে তিনি একটি স্বর্ণের দোকানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার আরাভ খান। ঢাকায় পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) স্কুল অব ইন্টেলিজেন্স পরিদর্শক মামুন ইমরান খানকে (৩৪) পুড়িয়ে হত্যা মামলার ৬ নম্বর পলাতক আসামি আরাভ খান। সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে তার জুয়েলারি শপ ‘আরাভ জুয়েলার্স’ উদ্বোধন করতে গেলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

আরাভ নিজেকে বাঁচাতে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অর্থের বিনিময়ে আরেকজনকে আদালতে আত্মসমর্পণ করিয়েছিলেন। কিন্তু জেলে থাকা সেই তরুণ এক পর্যায়ে সত্য প্রকাশ করে দেয়। এরপর আদালত বিষয়টি অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দিতে বলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখাকে (ডিবি)।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের ৮ জুলাই রাতে নিখোঁজ হন এসবির পরিদর্শক মামুন ইমরান খাঁন। পরিবারের সদস্যরা তার খোঁজ না পেয়ে পরদিন সবুজবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। সেই জিডির তদন্ত করতে গিয়ে গোয়েন্দা পুলিশের খিলগাঁও জোনাল টিম জানতে পারে, রহমত নামে এক বন্ধুর সঙ্গে মামুন ইমরান বনানীর একটি বাসায় আফরিন নামে এক কথিত মডেলের জন্মদিনের পার্টিতে গিয়েছিলেন। সেখানে আফরিনের সহযোগীরা তাকে ব্লাকমেইল করে অর্থ আদায়ের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে করা হয়। সেই মরদেহ উদ্ধার করা হয় গাজীপুরের একটি বাঁশঝাড় থেকে।

দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পুলিশ ‘আরাভ জুয়েলার্স’ উদ্বোধন ওরফে সোহাগ ওরফে হৃদয় ওরফে হৃদিসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। এ সময় রবিউল ইসলাম ওরফে আপন পলাতক ছিলেন। আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর রবিউল ইসলাম ওরফে আপন নামে ওই ব্যক্তি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

সূত্র জানায়, পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইমরান খাঁন হত্যাকাণ্ডে অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি রবিউল ইসলাম ওরফে আপনের বাড়ি গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ার আশুতিয়ায়। তার বাবার নাম মতিউর রহমান মোল্লা। আদালত থেকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর আপন নিজেকে বাঁচানোর জন্য ফন্দি আঁটেন। কৌশলে চাঁদপুরের কচুয়া থানাধীন সিংআড্ডা এলাকার নুরুজ্জামানের ছেলে আবু ইউসুফকে অর্থের প্রলোভনে তার বদলে আদালতে আত্মসমর্পণ করাতে রাজি করেন।

অর্থের লোভে আবু ইউসুফ নিজেকে রবিউল ইসলাম ওরফে আপন পরিচয় দিয়ে আত্মসমপর্ণ করেন। আদালত আবু ইউসুফকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন। পরে আপন তার পরিবারকে অর্থ দেয়া বন্ধ করে দিলে ইউসুফ বিষয়টি কারা কর্তৃপক্ষকে জানান। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মহানগর দায়রা জজ ফয়সল আতিক বিন কাদির ২০২১ সালের ২ মার্চ বিষয়টি তদন্ত করার জন্য মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে আদেশ দেন। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে রবিউল ইসলাম ওরফে আপনের নামে আবু ইউসুফের কারাবন্দি থাকার বিষয়টির প্রমাণ পায়।

সূত্র জানায়, নিজের বদলে আবু ইউসুফকে কারাগারে পাঠানোর আগেই আপন ভারতে পালিয়ে যায়। ২০২০ সালের ২৮ জুলাই তিনি পশ্চিমবঙ্গের নরেন্দ্রপুর উদয় সংঘ ক্লাব এলাকার বাসিন্দা হিসেবে একটি ভারতীয় পাসপোর্ট তৈরি করেন। জালিয়াতি করে বানানো ওই পাসপোর্টে তার বাবার নাম হিসেবে ব্যবহার করেন জাকির খান, মায়ের নাম দেন রেহানা বিবি খান এবং স্ত্রীর নাম সাজিমা নাসরিন। তার ভারতীয় পাসপোর্ট নম্বার ইউ ৪৯৮৫৩৮৯।

সূত্র জানায়, ভারতীয় পাসপোর্ট সংগ্রহ করে আপন আরাভ নাম নিয়ে দুবাই যাতায়াত শুরু করেন। তার পাসপোর্টে শেনজেন ভিসাও রয়েছে।

ডিবির অনুসন্ধানেও নিজের বদলে অন্যকে আসামি বানিয়ে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি প্রমাণিত হয়। পরে সেই ব্যক্তি পালিয়ে চলে যান ভারতে। মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভারত থেকে বানিয়ে নেন একটি পাসপোর্ট। ভারতীয় নাগরিক পরিচয়েই বসবাস শুরু করেন দুবাইতে। সেখানে আরাভ নামে একটি জুয়েলারি নেন। সেই দোকানের উদ্বোধন করতেই দুবাই গেলেন ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসান।

জানা গেছে, সাকিব ছাড়াও একঝাঁক তারকা উপস্থিত থাকবেন সেই অনুষ্ঠানে। থাকবেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্র পরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাস, গায়ক নোবেল, রুবেল খন্দকার, বেলাল খান, জাহেদ পারভেজ পাভেলের মতো আরো অনেকে।

আরাভ জুয়েলার্সের উদ্বোধন উপলক্ষে আরাভ খান তাঁর দুবাইয়ের বাড়িতে হরিণ জবাই দিয়ে শুভাকাঙ্ক্ষীদের নিয়মিত দাওয়াত খাওয়াচ্ছেন। এ নিয়ে তিনি নিয়মিত ফেসবুক লাইভও করছেন। সাম্প্রতিক সময়ে দুবাই পৃথিবীর স্বর্ণের ব্যবসার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। দুবাইপ্রবাসী অনেক বাংলাদেশি যেমন সেখানে স্বর্ণের দোকানে কাজ করেন, তেমনই আবার স্বর্ণের দোকানের মালিকানাতেও আছেন কিছু প্রবাসী।