ঢাকামঙ্গলবার , ২১ মার্চ ২০২৩
  • অন্যান্য

রং মাখানো করমচা বিক্রি হচ্ছে চেরীফল হিসেবে !

অনলাইন ডেস্ক
মার্চ ২১, ২০২৩ ১২:১৭ অপরাহ্ণ । ৯৮ জন
রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ভোক্তা অধিকারের অভিযান । ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের চেরি ফলের নামে রং মাখানো করমচা বিক্রির অভিযোগে এক দোকানিকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।
শুক্রবার সকালে কারওয়ান বাজারের কিচেন মার্কেটে তদারকি করা হয়।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, ওই দোকানে চেরি ফলের নামে রং মাখানো দেশি করমচা বিক্রি করা হচ্ছিল। প্যাকেটের গায়ে উৎপাদন তারিখ, মেয়াদ, মূল্য ও প্রস্তুতকারকের নাম ছিল না।
তারা জানান, দোকানটিতে থাকা কাসুন্দির বোতলেও উৎপাদনকারীর নাম-ঠিকানা ছিল না। তাই দোকানটিকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি করমচার প্যাকেটগুলো নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।
ফলের দোকান ছাড়াও কিচেন মার্কেটের মুদি ও মুরগির দোকানে অভিযান চালায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। তবে সেসব দোকানে শুধু সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। কেনা রশিদের তুলনায় মূল্য তালিকায় ব্রয়লার মুরগির দাম অনেক বেশি লেখায় মুরগির দোকানদারদের দাম কমানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়।
ক্রয় রশিদের তথ্য অনুয়ায়ী, দোকানিরা প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি কিনেছেন ১৩৩ টাকা করে। কিন্তু মূল্য তালিকায় দাম লিখে রেখেছেন ১৫০ টাকা। তাই প্রতি কেজিতে ৫ টাকা দাম কমানোর নির্দেশনা দেওয়া হয় এবং ভোক্তা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা দাঁড়িয়ে থেকে সেটি ঠিক করান।
অভিযানে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, সহকারী পরিচালক ও ঢাকা জেলা কার্যালয়ের অফিস প্রধান আব্দুল জব্বার মন্ডলসহ অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অভিযান শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে ভোক্তা অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে সরকারের বিভিন্ন সংস্থা বাজার নিয়ন্ত্রণে মাঠে কাজ করছে। আমরা জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে নিত্যপণ্যের বাজার, বিশেষ করে রমজানকেন্দ্রিক পণ্যের মূল্য এবং সরবরাহ ঠিক আছে কি না তা যাচাই করছি।
তিনি বলেন, আজ কারওয়ান বাজারে মুদি ও মুরগির বাজার তদারকি করা হয়েছে। রমজানকেন্দ্রিক পণ্য যেমন ছোলা ও চালের দাম কমেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া অন্যান্য পণ্যের দামও বাড়েনি বলে তারা জানিয়েছেন।
তিনি আরও বলেন, চিনির বিষয়ে কয়েকজন দোকানদার অভিযোগ করেছেন, দুই/একটি কোম্পানি চিনির সঙ্গে অন্য পণ্য ধরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। এটি ঠিক নয়। আমরা এই বিষয়ে সেসব কোম্পানির সঙ্গে আজকেই কথা বলব।