ঢাকারবিবার , ২৩ জুলাই ২০২৩
  • অন্যান্য

মায়ের ঘরে মেয়ের লাশ

স্টাফ রিপোর্টার
জুলাই ২৩, ২০২৩ ১১:২০ পূর্বাহ্ণ । ১১৮ জন
প্রতিকী ছবি

বগুড়ায় ঘরের মেঝেতে পুতে রাখা নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার বেলা ৩টার দিকে ধুনট উপজেলার চান্দারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নারী চান্দারপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের মেয়ে মর্জিনা খাতুন (৩৪)। তিনি স্বামী পরিত্যাক্তা ছিলেন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জানান, নিহত নারীর মৃতদেহ তার মা রওশনারার ঘরের মেঝে খুড়ে পাওয়া যায়। লাশটি তার মা পুঁতে রেখেছেন বলেও স্বীকার করেছেন। মর্জিনা খাতুনের লাশ উদ্ধার করা হয়।
এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মর্জিনার মা রওশনারা বেগমকে (৫৫) আটক করা হয়েছে। স্থানীয় ও পুলিশ সুত্র জানায়, নিহত মর্জিনা খাতুন জীবিকার তাগিদে অনৈতিক কাজে সম্পৃক্ত ছিলেন। তার ছেলে রাব্বি(২০), পুত্রবধু নুপুর(১৮) ও মা রওশনারা বেগমকে নিয়ে সংসার পরিচালনা করতেন। সম্প্রতি রওশনারার অসুস্থতার কারণে শারীরিকভাবে অক্ষম হয়ে পড়েন। ফলে পরিবারের উপার্জনের পথ বন্ধ হয়ে যায়। এ বিষয় নিয়ে প্রায় চার মাস ধরে তাদের সংসারে অশান্তির সৃষ্টি হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়েই গত ৩০ জুন মর্জিনাকে সম্ভবত শ্বাসরোধে হত্যা করে তার মা রওশনারাসহ পরিবারের সদস্যরা। এরপর মর্জিনার মৃতদেহ রওশনারার ঘরের মেঝেতে পুঁতে রেখে বাড়ি ছেড়ে নিরুদ্দেশ হয় মা, ছেলে ও পুত্রবধু। হঠাৎ এক পরিবারের সবাই নিরুদ্দেশ হওয়ায় গ্রামবাসীর মাঝে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। তারা থানা পুলিশকে বিষয়টি জানান। প্রাথমিক তদন্তে সন্দেহ হলে আজ শনিবার সকালে নিহত মর্জিনার মাকে ঢাকা থেকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে রওশনারার দেওয়া তথ্য অনুয়ায়ী মর্জিনার লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর নিহতের ছেলে রাব্বি ইসলাম ও ছেলে বউ নুপুর খাতুন পলাতক রয়েছে। ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম, গ্রামবাসীর দেওয়া তথ্যমতে প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা মিলেছে। নিহত মর্জিনার মা রওশনারাকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে মর্জিনার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।