ঢাকাশনিবার , ১ এপ্রিল ২০২৩
  • অন্যান্য

পশ্চিমা দেশ ইতালিই প্রথম চ্যাটজিপিটি নিষিদ্ধো ‍করেছে

অনলাইন ডেস্ক
এপ্রিল ১, ২০২৩ ৪:১৭ অপরাহ্ণ । ৯৫ জন
ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমা দেশেই প্রথম ব্লক হলো চ্যাটবট চ্যাটজিপিটি। ডিজিটাল দুনিয়ায় গোপনীয়তা রক্ষার অংশ হিসেবে এই প্রযুক্তি নিষিদ্ধ করেছে ইতালি।

চ্যাটজিপিটি তৈরি করেছে মার্কিন স্টার্ট-আপ ওপেনএআই, তাদের সাহায্য করছে টেক জায়ান্ট মাইক্রোসফট।

জনপ্রিয় চ্যাটবটের এই মডেলের ব্যবহারে গোপনীয়তা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে ইতালির উপাত্ত-সুরক্ষা কর্তৃপক্ষ।  তারা বলছে, এই সিদ্ধান্তের ফলে ওপেনএআই ও ইতালির ব্যবহারকারীদের মধ্যকার উপাত্ত আদান-প্রদানের ওপর সাময়িক বিধিনিষেধ তাৎক্ষণিক কার্যকর হবে।

২০২২ সালের নভেম্বরে চালু হওয়ার পর থেকে কোটি কোটি মানুষ চ্যাটজিপিটি ব্যবহার করছেন।

এটি ইন্টারনেট তথ্যভাণ্ডার ব্যবহার করে মানুষের মতো ভাষা ব্যবহার করে প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে, লেখার শৈলীর অনুকরণও করতে পারে।  তৈরি করে দিতে পারে জটিল কোড থেকে সৃজনশীল লেখা।

মাইক্রোসফট এ প্রযুক্তির পেছনে শত কোটি ডলার ব্যয় করেছে। গত ফেব্রুয়ারিতে সার্চ ইঞ্জিন বিং-এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে চ্যাটজিপিটি।  শিগগিরই মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপের সঙ্গে যুক্ত হতে পারে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআই-এর সম্ভাব্য ঝুঁকি নিয়ে এরই মধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশ্লেষকরা।  বলা হচ্ছে, এ প্রযুক্তি শুধু চাকরির জন্য হুমকিই নয়, ভুল তথ্য ও পক্ষপাতিত্ব ছড়ানোর ঝুঁকিও রয়েছে।

চলতি সপ্তাহে ইলোন মাস্কসহ প্রযুক্তি খাতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা এই ধরনের এআই ব্যবস্থাকে স্থগিত করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

ইতালির পর্যবেক্ষকরা বলছেন, তারা শুধু ওপেনএআই-এর চ্যাটবটকে ব্লক করে থামছে না।  বরং এটি সাধারণ উপাত্ত সুরক্ষা নিয়ম মেনে চলছে কি-না তাও তদন্ত করবে।

গত ২০ মার্চ তারা জানান, অ্যাপটি ব্যবহারকারীর কথোপকথন ও অর্থপ্রদান সংক্রান্ত উপাত্ত লঙ্ঘনের বিষয়টি নজরে এসেছে।

আরো বলছেন, অ্যালগরিদমকে আরো ব্যবহার উপযোগী করার জন্য ব্যক্তিগত তথ্যের ব্যাপক সংগ্রহ ও মজুদ করার পক্ষে কোনো আইনি ভিত্তি নেই।

এছাড়া তারা দেখতে পেয়েছেন, চ্যাটজিপিটি ব্যবহারকারীদের বয়স যাচাই করার কোনো উপায় ছিল না। অ্যাপটি অপ্রাপ্তবয়স্কদের বিকাশে বাধাগ্রস্ত করবে বলেও তাদের মত।

অন্যদিকে গুগলের এআই চ্যাটবট বার্ড শুধু ১৮ বছরের বেশি বয়সীরা ব্যবহার করতে পারেন।

ইতালির উপাত্ত-সুরক্ষা কর্তৃপক্ষ বলেছে, এই সব উদ্বেগের সমাধানের জন্য ওপেনএআই-এর কাছে ২০ দিন সময় রয়েছে।  অভিযোগ প্রমাণিত হলে দুই কোটি ইউরো বা বার্ষিক আয়ের ৪ শতাংশ জরিমানা হিসেবে দিতে হবে।