ঢাকাবুধবার , ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  • অন্যান্য

তেজগাঁওয়ে ‘টম অ্যান্ড জেরি’ খেলা হচ্ছে: মেয়র আতিক

অনলাইন ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৩ ৮:৪২ পূর্বাহ্ণ । ৮৬ জন
ট্রাক মালিকদের উদ্দেশ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন ।

‘দিনরাত সবসময় ট্রাকের দখলে থাকে তেজগাঁওয়ের আনিসুল হক সড়ক। অভিযানের খবর শুনলেই রাস্তা থেকে ট্রাক সরে যায়, অভিযান শেষে আবার ট্রাক রাস্তা দখল করে। সড়কটি নিয়ে টম অ্যান্ড জেরি খেলা হচ্ছে। জাস্ট টম অ্যান্ড জেরি।’  বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) তেজগাঁও ট্রাকস্ট্যান্ড সংলগ্ন মেয়র আনিসুল হক সড়কে অভিযান শেষে এসব কথা বলেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমি আসব দেখে বেশ কিছু ট্রাক নেই। আবার তারা কিছু ট্রাক সাইডে রেখে দিয়েছে। সত্যি কথা যদি বলি, সড়কটি নিয়ে টম অ্যান্ড জেরি খেলা হচ্ছে। জাস্ট টম অ্যান্ড জেরি। আমি এলে চলে যাচ্ছে, পুলিশ এলে চলে যাচ্ছে; পরে আবারও এসে রাস্তা দখল করছে, আবার চলে আসছে। এটা বাস্তব চিত্র।’ সড়কটি দখলমুক্ত করতে প্রায়ই অভিযান চালানো হয় জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘এখানে আমরা প্রায়ই অভিযান চালাই। কিন্তু দু-চার দিন পরই দখল হয়ে যায়। ট্রাকের মালিকরা বলছেন, জায়গা দিই না কেন? আমি বলেছি, আমি যেটা চাই, আগে সেটা করবেন। আমি চাই জনগণের যেন কোনো ভোগান্তি না থাকে। এর জন্য রাস্তার দুই পাশে কোনো ধরনের ট্রাক দাঁড়িয়ে থাকতে পারবে না।’

ফুটপাতের ওপর গাড়ি থাকায় জনগণের চলাচলে অসুবিধা হয় জানিয়ে ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘আমরা আলাদা একটা লেন করেছি। যে লেনটি শুধু রিকশার জন্য। আগে আমরা দেখতাম সড়কের ওপর ট্রাকগুলো উত্তর-দক্ষিণে রাখা হতো। ফলে ট্রাকের পেছনটা ফুটপাত দখল করে রাখত। এখন আমরা যে পদ্ধতি করেছি ফুটপাতে ট্রাক রাখতে পারবে না। ফুটপাত দিয়ে জনগণ হাঁটতে পারবে। জনগণ যেন নিরাপদে হাঁটতে পারে, তার জন্য আমরা এ পদ্ধতি নিয়েছি।’

সড়কটি নিয়ন্ত্রণে নিতে না পারার পেছনে কাউন্সিলরদের চাঁদাবাজির অভিযোগ নিয়ে তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধি চাঁদাবাজি করে, তাহলে এর চেয়ে দুঃখজনক আর কিছু নেই। তারা যদি করে থাকে সেটার প্রমাণ দিতে হবে। আপনি বলবেন, আরেকজন বলবে, পুলিশ চাঁদা খায়, আরেকজন বলবে মেয়র চাঁদা খান, সবাই চাঁদা খায়; এ রকম বললে হবে না, প্রমাণ দিতে হবে।’

সড়কটি দখলমুক্ত রাখতে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হবে উল্লেখ করে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘পুলিশের সমন্বয়ে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করতে চাচ্ছি। এখানে মালিক সমিতির প্রতিনিধি থাকবে, ট্রাক শ্রমিক প্রতিনিধি থাকবে, পুলিশ থাকবে, কাউন্সিলর থাকবে, আরেকজন প্রতিনিধি থাকবে।’  মেয়রের অভিযান লোকদেখানো কি না–সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘রাস্তাটা সবসময় পরিষ্কার রাখতে হবে। এ জন্য যা যা দরকার সব করতে হবে। আমাদের চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। আমাদের একটা সল্যুশন করতে হবে।’