ঢাকাসোমবার , ১৫ মে ২০২৩
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

তুরস্কের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট এরদোগান এগিয়ে আছেন

অনলাইন ডেস্ক
মে ১৫, ২০২৩ ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ । ৫০ জন
ছবি: সংগৃহীত

তুরস্কের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েফ এরদোগান এগিয়ে আছেন। ভোট গণনা শেষে তিনি ৪৯.৪৯ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কামাল কিলিচদারোগলু পেয়েছেন ৪৪.৭৯ শতাংশ ভোট। অর্থাৎ প্রায় ৫ শতাংশ ভোট বেশি পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন এরদোগান। কিন্তু তিনি নিজেও ৫০ শতাংশ ভোট নিশ্চিত করতে না পারায় এই নির্বাচন এখন দ্বিতীয় দফায় গড়াতে যাচ্ছে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

খবরে বলা হয়, তুরস্কের আইন অনুযায়ী কোন প্রার্থীই ৫০ শতাংশ ভোট না পেলে দুই সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয় দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আঙ্কারায় নিজের সমর্থকদের উদ্দেশ্যে এরদোগান বলেছেন যে, প্রয়োজন হলে তিনি দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে অংশ নেবেন। তবে তিনি বিশ্বাস করেন যে, তিনি জয় পাবেন। এদিকে দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে জয়ী হওয়ার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী কামালও। তিনি বলেছেন, তার প্রতিদ্বন্দ্বী মানুষের আস্থা ভোট অর্জনে ব্যর্থ হয়েছেন।

যদিও প্রথম দফায় এরদোগানই বেশি ভোট পেয়েছেন।

তুরস্কের কিছু দিন আগে ঘটে যাওয়া ধ্বংসাত্মক ভূমিকম্প এবং বাড়তি মুদ্রাস্ফীতির মধ্যেই এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। এরদোগান ও কামাল ছাড়াও তৃতীয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সিনান ওগান ৫ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। দ্বিতীয় দফার নির্বাচন করবেন এরদোগান ও কামাল। তাই সিনানের এই ৫ শতাংশ ভোটারকে তিনি যেদিকে ভোট দিতে বলবেন তিনিই নির্বাচনে জয়ী হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। সিনান জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তিনি আগামী কিছুদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত নেবেন। এ জন্য তিনি তার জোটের নেতাদের সাথে আলাপ করবেন। তারপরেই তিনি একটি সিদ্ধান্ত নেবেন।
তুরস্কে ৬ কোটি ৪০ লাখ ভোটার নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এরমধ্যে ৫০ লাখ হচ্ছেন নতুন ভোটার, যাদের বয়স ১৮ থেকে ২২ বছরের মধ্যে। তারা প্রথমবারের মত ভোট দিয়েছেন।

রোববারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলে এগিয়ে রিসেপ তাইয়েফ এরদোগান। এ নিয়ে তার সমর্থকদের আনন্দের শেষ নেই। জরিপে যেখানে দেখানো হচ্ছিল এরদোগান পিছিয়ে আছেন, সেখানে নির্বাচনের ফলে দেখা গেলো উল্টো চিত্র। রাজধানী আঙ্কারায় দলীয় সদর দফতরের সামনে রাত থেকেই ভিড় করেছেন হাজার হাজার সমর্থক। সেখানে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। এসময় সমর্থকরা খুশিতে গান গাইতে শুরু করলে এরদোগানও তাদের সঙ্গে তাল দিতে থাকেন।

সমর্থকদের উদ্দেশ্যে দেয়া বক্তৃতায় এরদোগান বলেন, দেশীয় এবং বিদেশি ভোটের জন্য ভোট গণনা অব্যাহত রয়েছে। আমরা চূড়ান্ত ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করছি।