ঢাকারবিবার , ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  • অন্যান্য

খরার কবলে পড়ার আশঙ্কা ইতালির

admin
ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৩ ৮:২১ পূর্বাহ্ণ । ৭৮ জন
বাড়ছে উষ্ণতা, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব

গত বছর ইউরোপের দেশ ইতালিতে দেখা দেয় তীব্র খরা। পরিস্থিতি এতটা ভয়াবহ হয়ে ওঠে যে খরার কারণে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে দেশটির সরকার। এবারও গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই আবহাওয়া বেশ শুষ্ক। এতে দেশটিতে এ বছরও নতুন করে খরার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বিজ্ঞানীরা এমন সময় এ সতর্কবার্তা দিলেন যখন ইতালির ভেনিস শহরের ছোট ছোট খাল শুকিয়ে যাচ্ছে। পানির অভাবে সেখানে চলতে পারছে না ওয়াটার ট্যাক্সি ও অ্যাম্বুলেন্স। এসব খাল শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে কম বৃষ্টি, ভেনিসে বাতাসের উচ্চ চাপ, পূর্ণিমা ও সমুদ্র উচ্চতা।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ইতালির উত্তরাঞ্চলের লেক গার্দার পানি রেকর্ড সর্বনিম্ন স্তরে নেমে আসে। লেকের পানি কমে যাওয়ায় এখন সান বিয়াগিওর ছোট দ্বীপে হেঁটেই যাওয়া যাচ্ছে।

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, আঠারো বছর ধরে এখানে বাস করছি এবং লেকটি এত শুকনো কখনো দেখিনি। আমি এখানে নৌকায় করে আসতাম, কিন্তু এখন হেঁটেই যেতে পারি।

আরেকজন ব্যক্তি বলেন, হ্রদ, উদ্ভিদ এবং প্রাণীর জন্য এবং পরিবেশের জন্য একটি নাটকীয় পরিস্থিতি, তবে আমরা এখানে আসি কারণ এটি আমাদের হ্রদ।

পরিবেশবিদ ও বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছে, আল্পসে এবার স্বাভাবিকের চেয়ে কম তুষারপাত হয়েছে। এতে সেখানে বেড়েছে খরার শঙ্কা।

ইতালির দীর্ঘতম নদী ‘পো’ যা আল্পস থেকে বয়ে উত্তর-পূর্ব দিকের অ্যাড্রিয়াটিক সাগরের দিকে চলে গেছে। পো নদীতে এখন স্বাভাবিকের চেয়ে ৬১ শতাংশ কম পানি রয়েছে।

খরা পরিস্থিতি প্রকট হওয়ায় গত বছর পো নদীর আশপাশের অঞ্চলে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। ওই পো নদীর ওপরই নির্ভর করেই ইতালির এক তৃতীয়াংশ কৃষি পণ্য। আর গত বছর এই নদীতে গত ৭০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পানি কমেছে।

ইতালির বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, বর্তমান এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে দেশটিতে অন্তত ৫০ দিন মুষলধারে বৃষ্টির প্রয়োজন।