ঢাকাসোমবার , ৩ জুলাই ২০২৩
  • অন্যান্য

ইন্টারনেটে ভাইরাল বিশ্বের সবচেয়ে নিচু গাড়ি

অনলাইন ডেস্ক
জুলাই ৩, ২০২৩ ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ । ৭৩ জন
সংগৃহীত:ছবি

বলা হচ্ছে ‘বিশ্বের সবচেয়ে নিচু গাড়ি’। তা হলেও তাতে তো একটা গাড়ির সবকিছু থাকার কথা। কিন্তু না, এই গাড়িতে সবকিছু নেই। দেখতে হুবহু গাড়ির মতো হলেও এতে আলাদা করে কোনো দরজা নেই। আর চাকার অংশ একদম দেখা যায় না। এমনই একটি গাড়ির ভিডিও চিত্র সম্প্রতি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে।

প্রযুক্তি এগিয়ে যাচ্ছে। গাড়িসংক্রান্ত প্রযুক্তিও এগিয়ে চলেছে সমানতালে। গাড়ি নির্মাতাপ্রতিষ্ঠানগুলো নতুন নতুন গাড়ি তৈরি করছে। চমকপ্রদ গাড়িও আসছে মাঝেমধ্যে।

এই ভিডিওতে দেখা যায়, একটি গাড়ি রাস্তায় চলছে। তবে গাড়িটির কোনো চাকা বাইরে থেকে দেখা যাচ্ছে না। এ ছাড়া দরজাও দৃশ্যমান নয়। তবে জানালাগুলো দেখা যায়। কালো কাচের জানালা হওয়ায় গাড়ির ভেতরে কী আছে, সেটাও দেখা যাচ্ছে না। রাস্তার সঙ্গে প্রায় লেগে রয়েছে গাড়িটি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আসার আগে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয় ক্যারামেগেদন নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে। এই চ্যানেলের পরিচয়ে লেখা আছে, এই ইউটিউব চ্যানেল পরিচালনা করেন তিন বন্ধু। তাঁরা গাড়ি খুব পছন্দ করেন। নতুন নতুন যত গাড়ি আসে, তা নিয়ে আধেয় তৈরি করেন তাঁরা। চ্যানেলটিতে দেখা যায়, গাড়ির ভিডিওটি সেখানে প্রায় এক লাখবার দেখা হয়েছে। তবে ম্যাসিমো নামে একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়েছে। এই অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটি দেখা হয়েছে ১ কোটি ৬২ লাখবার। এতে লাইক পড়েছে এক লাখের বেশি।

 

নতুন এই গাড়ি সম্পর্কে বলা হয়েছে, এতে একটি রোবট ব্যবহার করা হয়েছে। এ ছাড়া একটি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে সেখানে, যাতে গাড়ির সামনে কী আছে, তা বোঝা যায় এবং দিক পরিবর্তনে ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে পারে গাড়িটি।

অনেকেই গাড়িটি দেখে বেশ অবাক হয়েছেন। একজন ওই ভিডিওর মন্তব্যের ঘরে লিখেছেন, ‘আমি অবাকই হচ্ছি, সামনে গতিরোধক পড়লে এই গাড়ির কী হবে।’ আরেকজন এই গাড়িকে ভিডিও গেমসের গাড়ির সঙ্গে তুলনা করেছেন।

গাড়িটি দেখে অনেকেই কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সত্যিকার অর্থেই এই গাড়িতে বসা যাবে কি না, সেটাও ঠিক বোঝা যাচ্ছে না। একজন প্রশ্ন তুলেছেন, এই গাড়ি কীভাবে ব্যবহার করা যাবে? আবার আরেকজন এ নিয়ে কৌতুক করে বলেছেন, ‘এটা যদি গাড়ি হয়, তবে আমি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি।’

টুইটারে আরেকজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘গাড়িটি অবশ্যই মিস্টার বিন তাঁর নিজের জন্য উদ্ভাবন করেছেন।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘যদি কোনো যাত্রীই বহন করতে না পারে, তাহলে এটাকে কি গাড়ি বলা যায়?’ আরেকজন বলেছেন, ‘দেখতে খুব অবাস্তব লাগছে।’