ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  • অন্যান্য

সার্কের নতুন মহাসচিব কে হচ্ছেন ?

admin
ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৩ ৯:৫২ পূর্বাহ্ণ । ১৯৭ জন
সার্কের লোগো

সার্কের নতুন মহাসচিব বাংলাদেশ থেকে হবে, এটা নিশ্চিত হওয়ার পর সবার জানার আগ্রহ—কে এই পদ পাচ্ছেন? সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, এই পদ পেতে কয়েকজন সাবেক ও বর্তমান কূটনীতিক দৌড়ঝাঁপ করলেও সরকার মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম সারওয়ারকে নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন পেলেই নতুন মহাসচিবের নাম ঘোষণা করবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

জানা গেছে, মনোনয়ন পদ্ধতির নিয়ম মেনে মহাসচিবের নাম প্রস্তাব করে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য একটি সামারি পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পাওয়ার পর সার্ক সচিবালয়কে নতুন মহাসচিবের বিষয়ে জানানো হয়। এরপরই তিন বছরের জন্য নিয়োগ পাবেন নতুন সার্ক মহাসচিব। এ ক্ষেত্রে সার্কভুক্ত সদস্য দেশগুলোর মতামত নেওয়া বা অনুমোদনের প্রয়োজন নেই। বাংলাদেশ যাকে নিয়োগ দেবে, তিনিই হবে পরবর্তী মহাসচিব।

বিসিএস দশম ব্যাচের পররাষ্ট্র ক্যাডারের কর্মকর্তা গোলাম সারওয়ার ১৯৯০ সালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তিনি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অনু বিভাগের মহাপরিচালক ছিলেন। তিনি সুইডেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ছিলেন। তার ৩৩ বছরের কূটনৈতিক জীবনে তিনি ইয়াঙ্গুন, কাঠমান্ডু, ওয়াশিংটন ডিসি ও জেদ্দায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের পর গোলাম সারওয়ার জার্মানিতে ডিপ্লোমা এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ার ইস্ট-সাউথ এশিয়া সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ থেকে সিনিয়র এক্সিটিউটিভ কোর্স করেছেন।

সার্কের বর্তমান মহাসচিব শ্রীলঙ্কার সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ইসালা রুয়ান ভিরাকনের ২৮ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব শেষ হবে। সার্ক সনদ অনুযায়ী, সদস্য দেশের নামের ইংরেজি আদ্যাক্ষরের ক্রমানুসারে সার্কের মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন ওই দেশের সাবেক ও বর্তমান কূটনীতিকরা। সে হিসেবে শ্রীলঙ্কার পর এবার আফগানিস্তানের কারও মহাসচিবের দায়িত্ব পালনের কথা ছিল। তবে দেশটিতে বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি কোনো দেশ। ফলে ২০২১ সালের পর থেকে আফগানিস্তানকে সার্কের কোনো সভায় ডাকা হচ্ছে না। এই প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ থেকে মহাসচিব নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলো সম্মত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশের উদ্যোগে সার্ক প্রতিষ্ঠা হয়। সার্কের সচিবালয় নেপালের কাঠমান্ডুতে দুজন বাংলাদেশি মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন। সার্কের প্রথম মহাসচিব ছিলেন বাংলাদেশের আবুল আহসান। তিনি ১৯৮৭ থেকে ১৯৮৯ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। এরপর দ্বিতীয় মহাসচিব হিসেবে কিউ এম এ রহিম ২০০২ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।