ঢাকামঙ্গলবার , ৩০ এপ্রিল ২০২৪
  • অন্যান্য

মঠবাড়িয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক:
এপ্রিল ৩০, ২০২৪ ৬:৪৪ অপরাহ্ণ । ৩২ জন

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অপহরণের ঘটনায় সাপলেজা ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিরাজ হোসেনসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী মো. আল আমিন সুমন (৩০) বাদী হয়ে সোমবার (২৯ এপ্রিল) মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। বিচারক হাকিম মো. আতিকুজ্জামান মামলাটি আমলে নিয়ে পিরোজপুর সিআইডিকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) বাদী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট রফিকুল ইসলাম বাবুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী সুমন উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের চড়কগাছিয়া গ্রামের এমাদুল হক এর ছেলে। অন্যান্য আসামীরা একই ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জেরে গত ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সুমনকে চরকগাছিয়া গ্রামের নব উদ্বোধনী আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে থেকে ৮ থেকে ১০ জনের একটি দল জোর পূর্বক তুলে নিয়ে যায় ইউপি চেয়ারম্যান মিরাজ হোসেনের কাছে। এ সময় সুমনকে হত্যার হুমকি দিয়ে তাকে আটক রাখার নির্দেশ দেয় ইউপি চেয়ারম্যান। পরে চেয়ারম্যানের ওই সহযোগীরা সুমনের চোখ বেঁধে মারধার করে মোটরসাইকেলে করে অজ্ঞাতনামা জায়গায় নিয়ে একটি ঘরে আটক রাখে। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ ও সুমনের স্বজনরা তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে।

মামলায় সুমন আরো উল্লেখ করেন, পুলিশের তৎপরতার কারণে তাকে হত্যা না করে গত ২৭ এপ্রিল শনিবার রাত ১২টার দিয়ে চোখ বাঁধা অবস্থায় ডা. রুস্তম আলী ফরাজী কলেজের কাছাকাছি প্রধান সড়কের পাশে ফেলে রেখে যায়। এ ঘটনায় তিনি থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেন।

সাপলেজা ইউপি চেয়ারম্যান মিরাজ হোসেন এ বিষয়ে বলেন, ‘রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।’ মামলা না নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে কেউ কোন লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হতো।’