ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  • অন্যান্য

চিকিৎসা পরামর্শ পত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রিতে জরিমানা ২০ হাজার টাকা

অনলাইন ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২৩ ৭:০৮ পূর্বাহ্ণ । ৬৭ জন
চিকিৎসা পরামর্শ পত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রিতে জরিমানা ২০ হাজার টাকা

চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন  বা  চিকিৎসা পরামর্শ পত্র  ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রেখে ‘ওষুধ ও কসমেটিকস আইন, ২০২৩’-এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এ ছাড়া ওষুধের কৃত্রিম সংকট তৈরি, নকল ওষুধ উৎপাদন বা জ্ঞাতসারে কোনো নকল ওষুধ বিক্রি, মজুত, বিতরণ বা বিক্রির উদ্দেশ্যে প্রদর্শন করলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। পরে সচিবালয়ে ফিরে প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, এ-সংক্রান্ত পুরোনো দুটি আইনকে এক করে এবং এর সঙ্গে আরও নতুন কিছু বিষয় যুক্ত করে মন্ত্রিসভার বৈঠক থেকে গত বছরের ১১ আগস্ট এ আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। সেটিকে আজ (গতকাল) চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, অনুমোদনের ক্ষেত্রে একটু পরিবর্তন এসেছে। আগে যে আইনগুলো ছিল তা মূলত ওষুধ নিয়ে ফোকাস করা ছিল। কিন্তু নতুন যে খসড়াটি করা হয়েছে সেখানে কসমেটিকসও অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। মাহবুব হোসেন বলেন, অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করার জন্য এখানে ধারা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। বলা হচ্ছে, এখন রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি ও ব্যবহার বন্ধ থাকবে। বিষয়টি অমান্য করলে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হবে। কসমেটিকসের উৎপাদন, বিতরণ ও স্টোর—এগুলোও রেগুলেট করা হবে। আমাদের ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর যেটা আছে সেটা কন্টিনিউ করবে ও তাদের দায়িত্বের পরিধি এখানে সুনির্দিষ্ট করা হয়েছে। শাস্তির বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ৩০টি অপরাধ চিহ্নিত করা হয়েছে এবং এসব অপরাধে শাস্তির কথা উল্লেখ করা আছে।

এ ছাড়া গতকালের বৈঠকে ‘কপিরাইট আইন-২০২৩’-এর খসড়াও চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। বৈঠকে প্রতিবছর ১৬ জানুয়ারিকে ‘জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস’ হিসেবে ঘোষণা এবং দিবসটি উদযাপনের লক্ষ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা এ বিষয়ে পরিপত্রের ‘খ’ ক্রমিকে তা অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।